সরকারি ভাবে বিদেশ যেতে আবেদন করবেন যেভাবে...
Connect with us

আমার দেশ

সরকারি ভাবে বিদেশ যেতে আবেদন করবেন যেভাবে…

Published

on

কোনো দালাল বা মধ্যসত্ত্বাভোগী ছাড়াই বিদেশ যেতে পারবেন কর্মীরা…

বছরে প্রতি উপজেলা থেকে ১ হাজার কর্মী বিদেশ পাঠানো হবে…

Loading…

আরও পড়ূনঃ মাত্র ২ দিনে ১০ বছর মেয়াদি ই-পাসপোর্ট হাতে পাবেন

বিদেশ যেতে দ্বিতীয় ধাপে শুরু হচ্ছে কর্মীদের নিবন্ধন কর্মসূচি। আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি (রবিবার) থেকে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রতিষ্ঠান জনশক্তি কর্মসংস্থান ও পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিএমইটি) কেন্দ্রীয় ডাটাব্যাংকে এ নিবন্ধন শুরু হচ্ছে। জনশক্তি কর্মসংস্থান ও পরিসংখ্যান ব্যুরো এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়- দক্ষ, স্বল্পদক্ষ, অদক্ষ এবং নারী-পুরুষ কর্মী সকলেই এখানে নিবন্ধন করতে পারবেন।

নিবন্ধনের সুবিধা ও পদ্ধতি:

* কোনো দালাল বা মধ্যসত্ত্বাভোগী ছাড়াই বিদেশ যেতে পারবেন কর্মীরা।

* বৈদেশিক কর্মসংস্থান ও অভিবাসি আইন ২০১৩ অনুযায়ী সরকার অনুমোদিত রিক্রটিং এজেন্সি/ বৈদেশিক নিয়োগকর্তারা ডাটা ব্যংক হতে অনলাইনে কর্মী নির্বাচনের ফলে দালাল/ মধস্বত্বভোগীদের সহায়তা নিতে হবে না। ফলে বিদেশে চাকরি প্রার্থীদের হয়রানি/দুর্ভোগ লাঘব হবে এবং অভিবাসন ব্যয় কমে যাবে।

আরও পড়ূনঃ কোনো প্রবাসী মারা গেলে ৩ লাখ ৩৫ হাজার টাকা দেয়া হবে!

Loading…

* রেজিস্ট্রেশনকৃত কর্মী/চাকরি প্রার্থীদের নির্বাচনসহ বৈদেশিক কর্মসংস্থানের সর্বশেষ অবস্থা এসএমএসের মাধ্যমে জানানো হবে।

* এ নিবন্ধনের মেয়াদ হবে দুই বছর।

* এই রেজিস্ট্রেশন একটি চলমান প্রক্রিয়া যা যে কোনো সময় সংশ্লিষ্ট জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস কিংবা কারিগরি প্রশিক্ষন কেন্দ্র হতে সম্পন্ন করা যাবে।

* বৈদেশিক কর্মসংস্থানের জন্য যোগ্যতা অনুযায়ী কর্মী নির্বাচিত করা হবে।

* বিদেশ গমনেচ্ছু কর্মীদের বৈদেশিক শ্রমবাজারের চাহিদা মোতাবেক রিক্রুটিং এজেন্সি/নিয়োগকর্তার নিকট উপস্থাপন করা হবে।

* ডাটা ব্যংকে রেজিস্ট্রেশন কোনভাবেই বিদেশে চাকরি প্রদানের নিশ্চয়তা বহন করে না।

আরও পড়ুনঃ বাংলাদেশ থেকে দক্ষ কর্মী নিবে ‘কাতার’

রেজিস্ট্রেশন করতে কর্মীর যোগ্যতা:

* নিবন্ধনকারী কর্মীর বয়স অবশ্যই ১৮ বছরের উপরে হতে হবে।

* মধ্যপ্রাচ্যে নারী গৃহকর্মী হিসেবে যেতে ইচ্ছুকের বয়স ২৫-৪৫ বছরের মধ্যে হতে হবে।

* নিবন্ধনকারীর অন্তত ছয় মাসের বৈধ পাসপোর্ট এবং নিজস্ব মোবাইল থাকতে হবে।

* নিবন্ধনের আপডেট তথ্য মাঝে মাঝে তাকে এসএমএসের মাধ্যমে জানিয়ে দিবে কর্তৃপক্ষ।

নিবন্ধনের সময় সকল যোগ্যতা বা অভিজ্ঞতা সনদ ডাটাব্যাংকে সংযোজন করতে হবে। তাই এ সময়ের মধ্যে কোনো যোগ্যতা বা অভিজ্ঞতা অর্জিত হলে তা ডাটাব্যাংকে সংযোজনের সুযোগ রয়েছে। নিবন্ধনকারীর যোগ্যতার ভিত্তিতে সরকার কাজের ব্যবস্থা করবে। তবে ডাটাব্যাংকে নিবন্ধন কোনোভাবেই নিবন্ধনকারীর বিদেশ যাওয়া নিশ্চিত করবে না।

নিবন্ধন ফি:

আগ্রহী কর্মীরা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে (বিকাশ/নগদ/সিওরক্যাশ/রকেট) ২০০টাকা পাঠিয়ে এ নিবন্ধন সম্পন্ন করতে পারবেন।

কোথায় নিবন্ধন করবেন:

প্রাথমিকভাবে সকল জেলার বিদেশ গমনেচ্ছুরা ঢাকায় প্রবাসী কল্যাণ ভবনে জেলা কর্মসংস্থান অফিসে গিয়ে নিবন্ধন করতে হবে। পর্যায়ক্রমে অন্য জেলার কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস এবং কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে নিবন্ধন শুরু হবে। প্রবাসী কল্যাণ ভবন, ৭১/৭২ ইস্কাটন গার্ডেন, রমনা, ঢাকা। আরও তথ্যের জন্য- ০১৮৮ ৯২২ ১২৫৫ এই নম্বরে কল করতে পারেন।

এদিকে সরকারের নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী বছরে প্রতি উপজেলা থেকে ১ হাজার কর্মী বিদেশ পাঠানোর কথা রয়েছে। সে অনুযায়ী সরকারিভাবে বিদেশে কর্মী পাঠাতে গেল বছরের ১ আগস্ট ঢাকা জেলায় নিবন্ধন শুরু হয়। পরে ২৭ অক্টোবর শুরু হয় নারয়ণগঞ্জ এবং গাজীপুর জেলার নিবন্ধন। আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি থেকে দেশের বাকি ৬১ জেলায় নিবন্ধন শুরু হচ্ছে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

আমার দেশ

দেশে আটকে পড়া প্রবাসীদের সহজ কিস্তিতে ঋণ সুবিদার দাবি

Published

on

করোনায় অর্থনৈতিক মন্দায় হিমশিম খাচ্ছেন কুয়েত প্রবাসী বাংলাদেশিরা। দেশে আটকে পড়া প্রবাসী অভিবাসীরা যেমন ফিরতে পারছেন না নিজেদের কর্মস্থলে, ঠিক তেমনি অর্থনৈতিক মন্দার ফলে অনেকেই চাকরি হারিয়ে দেশে ফিরে যাচ্ছেন অনেকে।

কর্মহীন এ সকল অভিবাসীদের এই দুর্দিনে পেনশন ভাতা চালু ও সহজ কিস্তিতে ঋণের ব্যবস্থা করার দাবি জানিয়েছে প্রবাসী বাংলাদেশিরা

দীর্ঘ ১ বছর ধরে সারাবিশ্বে করোনার তান্ডবে লণ্ডভণ্ড মানুষের স্বাভাবিক জীবন যাপন। লকডাউন ও কারফিউর কারনে কর্মচাঞ্চ্যলতা স্থবির হয়ে পড়ে। ফলে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, দোকানপাট, শপিংমল ও রেস্টুরেন্টগুলোর বেচাকেনায় নেমে আসে স্থবিরতা।
এর প্রভাব পড়ে প্রবাসীদের কর্মস্থলেও। অনেকেই আবার চাকরি হারিয়ে কর্মহীন হয়ে পড়ে। তাছাড়া  ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বেচাকেনা কমে যাওয়ায় লোকসান গুনতে হয়েছে ব্যবসায়ীদের। দোকান ভাড়া ও শ্রমিকদের বেতন ভাতা পরিশোধ করতে না পেরে বিক্রি করে দিয়েছেন তাদের প্রতিষ্ঠান। এর ফলে অনেকেই চাকরি হারিয়ে কর্মহীন হয়ে দেশে চলে যান। 

অপরদিকে, প্রায় ১ বছর যাবৎ ছুটিতে থাকা প্রায় ১২ হাজার অভিবাসী বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় কর্মস্থলে ফিরে আসতে না পারায় কর্মহীন হয়ে বেকারত্ত্বের অভিশাপ নিয়ে দেশে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। তাদের এই বেকারত্বের অভিশাপ থেকে মুক্তি পেতে সরকার যেন তাদের জন্য পেনশন ভাতা চালু করেন এবং সহজ কিস্তিতে ঋণের সুব্যবস্থা করার দাবি জানিয়েছেন তারা।

কুয়েতে প্রায় তিন লাখ অভিবাসী বাংলাদেশি রয়েছেন। এর মধ্যে প্রায় ১২ হাজার অভিবাসী দেশে ছুটিতে গিয়ে আটকা পড়ে বেকারত্ব জীবন যাপন করছেন।

Continue Reading

আমার দেশ

৭০০ কোটি টাকা ঋণ দেওয়া হচ্ছে বিদেশফেরত কর্মীদের

Published

on

করোনাকালে চাকরি হারিয়ে বিদেশ থেকে ফিরে আসা কর্মীদের জন্য ৭০০ কোটি টাকার ঋণ প্রকল্প হাতে নিয়েছে সরকার। একটি নীতিমালা তৈরি করে ইতোমধ্যে ঋণ বিতরণও শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার (৯ মার্চ) সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়। এছাড়া সরকার বিদেশফেরত কর্মীদের আবার বিভিন্ন দেশে পাঠানোর চেষ্টা করছে বলে জানান প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ।

সংসদ ভবনের পশ্চিম ব্লকের দ্বিতীয় লেভেলের কেবিনেট কমিটি কক্ষে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির ১২তম সভা অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকের কার্যপত্র থেকে জানা গেছে, করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে বিদেশফেরত কর্মীদের এবং প্রবাসে করোনায় মৃত কর্মীদের পরিবারের সদস্যদের প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকের মাধ্যমে বিনিয়োগ ঋণ (বিশেষ পুনর্বাসন ঋণ) প্রদানের জন্য ওয়েস আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের তহবিল থেকে ২০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। বিদেশফেরত কর্মীদের অর্থনৈতিক পুনর্বাসনের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে  ৫০০ কোটি টাকাসহ মোট ৭০০ কোটি টাকার ঋণ কার্য্ক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। ঋণ সংক্রান্ত একটি নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়েছে। নীতিমালার আলোকে এ পর্যন্ত চার হাজার ৩১২ জনকে ৯০ কোটি ২৫ লাখ টাকা ঋণ দেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রণালয়ের তথ্য মতে, সরকারি খাত থেকে অভিবাসন ঋণ, পুনর্বাসন ঋণ ও বঙ্গবন্ধু অভিবাসন বৃহৎ পরিবার ঋণ খাতে দুই হাজার ৭৬০ জনকে ৫৬ কোটি ১৯ লাখ টাকা এবং ওয়েস আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের তহবিল থেকে এক হাজার ৫৫২ জনকে ৩৪ কোটি ছয় লাখ টাকা ঋণ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া বিদেশফেরত কর্মীদের জন্য বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডে একটি প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। এটি দ্রুত বাস্তবায়িত হবে।

বিদেশফেরত কর্মীদের ফেরত পাঠানোর চেষ্টা করছে সরকার

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ বলেছেন, ‘মন্ত্রণালয় থেকে  নিবিড়ভাবে আন্তর্জাতিক শ্রমবাজার পর্যবেক্ষণ এবং নতুন শ্রমবাজার উন্মোচনের চেষ্টা করা হচ্ছে।’ 

তিনি জানান, বিদেশফেরত কর্মীদের আর্থসামাজিক পুনর্বাসনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তাদের যথাযথ প্রশিক্ষণ দিয়ে দক্ষ কর্মী হিসেবে পুনরায় বিদেশে পাঠানোর উদ্যোগ অব্যাহত রয়েছে। এছাড়া ফিরে আসা কর্মীদের কাজের পূর্ব অভিজ্ঞতাকে সনদায়নের ব্যবস্থা করা হয়েছে। 

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি আনিসুল ইসলাম মাহমুদ সভাপতিত্বে ওই সভায় আরও বক্তব্য রাখেন কমিটির সদস্য অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ, মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, বেগম আয়েশা ফেরদাউস, সাদেক খান, মো ইকবাল হোসেন এবং মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন। 

ওই সভায় বক্তারা বিদেশফেরত কর্মীদের রিইন্টিগ্রেশন, পুনরায় বিদেশে প্রেরণ এবং কোভিড-১৯ পরবর্তী শ্রমবাজার পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেন। বৈঠক শেষে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ এমপি কমিটির সভাপতি ও সদস্যদের হাতে মন্ত্রণালয়ের বার্ষিক প্রতিবেদন ২০১৯-২০ এর কপি তুলে দেন।

Continue Reading

আমার দেশ

‘সাগরে ভাসা রোহিঙ্গা নিয়ে বিবিসির রিপোর্ট ঠিক নয়’

Published

on

‘সাগরে ভাসা রোহিঙ্গা নিয়ে বিবিসির রিপোর্ট ঠিক নয়’

সাগরে ভাসা রোহিঙ্গাদের নিয়ে বিবিসির সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনের তথ্য সঠিক নয় বলে মন্তব্য করেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। আজ বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিজ্ঞপ্তিতে বলেছে, রোহিঙ্গারা বাংলাদেশের উপকূলে ভাসছে বলে যে তথ্য দেওয়া হয়েছে, তা সঠিক নয়। সাগরে ভাসা রোহিঙ্গারা বাংলাদেশ থেকে অনেক দূরে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, জাতিসংঘের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে স্পষ্ট করেই বলা হয়েছিল যে রোহিঙ্গাদের নিয়ে ভাসমান নৌযানটির অবস্থান আন্দামান সাগরে। এটি বঙ্গোপসাগরের দক্ষিণ-পূর্বে, মিয়ানমারের দক্ষিণে, থাইল্যান্ডের পশ্চিমে এবং ভারতের আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের পূর্বে অবস্থিত।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, নৌযানটি এখন বাংলাদেশ থেকে ১ হাজার ৭০০ কিলোমিটার দূরে রয়েছে। এটির অবস্থান এখন মিয়ানমার থেকে ৪৯২ কিলোমিটার, থাইল্যান্ড থেকে ৩৬৩ কিলোমিটার, ইন্দোনেশিয়া থেকে ২৮১ কিলোমিটার ও ভারত থেকে ১৪৭ কিলোমিটার দূরে। এটি স্পষ্ট যে নৌযানের অবস্থান বাংলাদেশ থেকে অনেক দূরে এবং অন্য দেশগুলোর অনেকটা কাছাকাছি।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, সমুদ্রসীমাবিষয়ক জাতিসংঘের সনদের অধীনে আন্তর্জাতিক আইনের প্রতি বাংলাদেশ শ্রদ্ধাশীল। এ প্রসঙ্গে বলা যায়, এর আগে এ অঞ্চলের অন্য দেশ যখন তাদের সীমানায় ভাসমান রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিতে বারবার অস্বীকার করেছে, তখন বাংলাদেশ সরকার অন্য দেশের সমুদ্রসীমা থেকে তাদের উদ্ধার করেছিল। যে দেশের সমুদ্রসীমায় এ ধরনের নৌযান ভাসমানভাবে অবস্থান করবে, সেটি উদ্ধার করার দায়িত্ব ওই দেশের। ওই দেশগুলোর উচিত তাদের যে আন্তর্জাতিক দায়বদ্ধতা আছে, সেটি যেন তারা পূরণ করে।

Continue Reading

আমার দেশ

ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে সৌদি রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ

Published

on

ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে সৌদি রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হকের সঙ্গে বাংলাদেশে নিযুক্ত সৌদি আরবের রাষ্ট্রদূত ইসসা ইউসেফ ইসসা আল দুহাআলান সাক্ষাৎ করেছেন। বৃহস্পতিবার (২৫ফেব্রুয়ারি) বিকেলে মন্ত্রণালয়ে ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর কার্যালয়ে তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন সৌদি রাষ্ট্রদূত। এসময় প্রতিমন্ত্রী বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যকার ঐতিহাসিক ভ্রাতৃত্বপূর্ণ সুদৃঢ় সম্পর্কের কথা উল্লেখ করেন।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী করোনা পরিস্থিতির কারণে হজ করতে না পারায় বাংলাদেশের অপেক্ষমান লাখ লাখ হজযাত্রীর আগ্রহ ও আবেগের বিষয়টি তুলে ধরেন এবং এ বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের যাবতীয় প্রস্তুতির কথাও তিনি উল্লেখ করেন।

এ সময় সৌদি রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘করোনা মোকাবিলায় সৌদি আরব সরকার পর্যাপ্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। তবে আল্লাহর মেহমান হজযাত্রীদের নিরাপত্তার কথা বিবেচনায় রেখে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করে আগামী হজের বিষয়ে যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে বাংলাদেশকে যথাসময়ে অবহিত করা হবে।’

প্রতিমন্ত্রী সৌদি আরব সরকারের অর্থায়নে বাংলাদেশের প্রতিটি বিভাগ ও রাজধানী শহরে পূর্ব প্রতিশ্রুত আটটি আইকনিক মসজিদের সঙ্গে আরো একটি মসজিদ যুক্ত করে মোট নয়টি মসজিদ নির্মাণের প্রস্তাব করলে সৌদি রাষ্ট্রদূত তাতে সম্মতি প্রদান করেন এবং এ বিষয়ে দুই দেশের মধ্যকার প্রস্তুতির অগ্রগতির বিষয়ে আলোচনা করেন।

প্রতিমন্ত্রী মিয়ানমার সরকার কর্তৃক জোরপূর্বক বিতাড়িত ১২ লাখ রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে বাংলাদেশ আশ্রয়ের যে ব্যবস্থা করেছে তা উল্লেখ করেন। এ সময় সৌদি রাষ্ট্রদূত রোহিঙ্গা মুসলিম জনগোষ্ঠীকে আশ্রয় দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ যে দয়া ও মানবিকতার পরিচয় দিয়েছে সেজন্য বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী, তার সরকার এবং জনগণের প্রশংসা করেন। রোহিঙ্গা প্রশ্নে সৌদি সরকার বাংলাদেশকে দৃঢ়ভাবে সমর্থন করে এবং এ বিষয়ে বাংলাদেশের প্রতি তার দেশ ও সরকারের সমর্থন ও সহযোগিতা অব্যাহত রাখা হবে বলে উল্লেখ করেন।

প্রতিমন্ত্রী আলোচনাকালে বাংলাদেশের ওয়াকফ সম্পত্তি ব্যবস্থাপনা এবং যাকাত ব্যবস্থাপনার বিষয়ে সৌদি আরব সরকারের সফলতার অভিজ্ঞতা বিনিময় ও সহযোগিতা চাইলে সৌদি রাষ্ট্রদূত এবিষয়ে বাংলাদেশকে সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন এবং প্রতিনিধি প্রেরণের কথা উল্লেখ করেন।

সৌদি রাষ্ট্রদূত বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশি সৌদি আরবে কর্মরত থেকে সে দেশের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রার যে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে তা তুলে ধরেন এবং করোনা মহামারি পরিস্থিতিতে সৌদি আরবে অবস্থানরত বাংলাদেশিদের বিষয়ে সৌদি আরব সরকার যথেষ্ট সচেতন রয়েছে বলে উল্লেখ করেন।

সাক্ষাৎকালে বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরো উন্নত ও শক্তিশালী করতে এবং পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধি করতে উভয় দেশের প্রত্যয় ব্যক্ত করা হয়। এ সময় সৌদি আরবের রাষ্ট্রদূত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে তার বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসা করে তার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন।

Continue Reading

আমার দেশ

রিক্রুটিং এজেন্সির সংখ্যা নিয়ে একমত হতে পারেনি বাংলাদেশ-মালয়েশিয়া

Published

on

রিক্রুটিং এজেন্সির সংখ্যা নিয়ে একমত হতে পারেনি বাংলাদেশ-মালয়েশিয়া

মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার চালুর বিষয়ে রিক্রুটিং এজেন্সির সংখ্যা নিয়ে একমত হতে পারেনি দুই দেশ। বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ ও মালয়েশিয়ার যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক শেষে এ কথা জানান প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ।

এর আগে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে অনলাইনে দ্বিতীয় দিনের মতো এ বৈঠক শুরু হয়। বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্ব দেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ এবং মালয়েশিয়ার পক্ষে দেশটির মানবসম্পদমন্ত্রী এম সারাভানান।

বৈঠকে শ্রমবাজার চালুর বিষয়ে শ্রমিকদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী ইমরান আহমদ।

Continue Reading

লাইক দিন আমাদের ফেইসবুক পেইজে

Advertisement
Loading...

Trending

error: Content is protected !!